নারকেল তেল ত্বকের জন্য কতটা উপকারী?

নিউজটি শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক : ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সবাই কমবেশি চেষ্টা করেন। অনেকেই হয়তো জানেন না, ত্বকের যত্নে নারকেল তেলের জুড়ি নেই। নারকেল তেল চুলের জন্য যতটা উপকারী ত্বকের জন্যও ঠিক ততটাই ভালো। তবে নারকেল তেল ব্যবহারের কিছু নিয়ম আছে। ত্বকের যত্নে সেসব জানা জরুরি।

যাদের তেলতেলে ত্বক, তারা সরাসরি মুখে তেল মাখবেন না। বরং ফেসপ্যাকে উপাদান হিসেবে রাখুন নারকেল তেল। যাদের ত্বক শুষ্ক তারা সরাসরি ক্রিমের মতো মুখে নারকেল তেল লাগাতে পারেন। বাজারচলতি চুলের জন্য তৈরি নারকেল তেল না কিনে এক্সট্রা ভার্জিন নারকেল তেল কিনুন। এই তেল সাধারণ নারকেল তেলের চেয়ে হালকা, পরিশুদ্ধও বেশি। নিয়মিত নারকেল তেলের ব্যবহার ত্বকের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া নষ্ট করে ত্বকে সংক্রমণ প্রতিরোধ করে। ত্বকে কোনওরকম জ্বালাপোড়া ভাব হলে তা কমাতেও নারকেল তেল যথেষ্ট কার্যকর। শুষ্ক ত্বকের জন্য নারকেল তেলের মতো ভালো ময়শ্চারাইজ়ার আর নেই।

কীভাবে ফেসপ্যাকে ব্যবহার করবেন নারকেল তেল?

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য নারকেল তেল ও মধুর প্যাক : এই ফেসমাস্কটি ক্লিনজ়ারের মতো কাজ করে। ত্বকে জমে যাওয়া ধুলা ময়লা ও মৃত কোষ সরিয়ে এবং রোমছিদ্র পরিষ্কার করে ত্বক উজ্জ্বল রাখতে জুড়ি নেই এই প্যাকটির।

কী লাগবে
এক কাপের এক চতুর্থাংশ কাপ নারকেল তেল, ১ টেবিলচামচ কাঁচা মধু, এক চতুর্থাংশ শিয়া বাটার

পদ্ধতি : পাত্রে একসঙ্গে নারকেল তেল আর শিয়া বাটার নিয়ে আঁচে বসিয়ে গলিয়ে নিন। আঁচ থেকে নামিয়ে তাতে কাঁচা মধু যোগ করুন। ভালো করে মিশিয়ে সারা মুখে সমানভাবে লাগান। অন্তত আধঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন।

ব্ল্যাকহেডস কমাতে নারকেল তেল ও বেকিং সোডার প্যাক

এই ফেসমাস্কটি ক্লিনজ়ারের মতো কাজ করে। ত্বকে জমে যাওয়া ধুলাময়লা, মৃত কোষ সরিয়ে ও রোমছিদ্র পরিষ্কার করে ত্বক উজ্জ্বল রাখতে জুড়ি নেই এই প্যাকটির।

কী লাগবে

১টেবিলচামচ নারকেল তেল, ১ চা চামচ বেকিং সোডা
পদ্ধতি: বেকিং সোডা আর তেল একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্টের মতো করে নিন। ব্ল্যাকহেডসের উপর লাগিয়ে হালকা হাতে মিনিট দশেক মাসাজ করুন। তারপর মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দু’বার করলেই ব্ল্যাকহেডসের সমস্যা কমবে।

ব্রণ কমাতে নারকেল তেল ও দারুচিনি

নারকেল তেল আর দারুচিনি, দুইয়েরই অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ ব্রণ কমাতে সহায়তা করে।

কী লাগবে
১ চা চামচ নারকেল তেল, ১ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া (বাজার থেকে স্টিক কিনে বাড়িতে গুঁড়িয়ে নিতে পারেন)

পদ্ধতি : দারুচিনি গুঁড়ো আর নারকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্টের মতো করে নিন।ব্রণের উপর লাগিয়ে আধঘণ্টা রেখে দিন। আধঘণ্টা পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিনবার করতে হবে। তবে কারও কারও দারুচিনির কারণে ত্বকে জ্বালা করতে পারে। ত্বকের সহনক্ষমতা অনুসারে দারুচিনির পরিমাণ কমাতে বা বাড়াতে পারেন।

ত্বকে উজ্জ্বল ভাব আনতে নারকেল তেল আর হলুদ

হলুদ ত্বকের দাগছোপ দূর করে উজ্জ্বলভাব আনতে সাহায্য করে, লেবুর অ্যাস্ট্রিনজেন্ট ত্বক তেলতেলে হতে দেয় না। মধু আর নারকেল তেল ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখে।

কী লাগবে
৩ টেবিলচামচ নারকেল তেল,আধ চা চামচ হলুদ গুঁড়া, আধ চা চামচ লেবুর রস, ১টেবিল চামচ মধু

পদ্ধতি : পাত্রে সব উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। পরিষ্কার মুখে ফেস মাস্কটি লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফল পেতে সপ্তাহে দু’থেকে তিন বার এই মিশ্রণ ব্যবহার করতে হবে। সূত্র: ফেমিনা

 

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »